পরিবেশকে পরিস্কার রাখুন

অচেতন লোকদের দ্বারা সৃষ্ট নোংরা পরিবেশ – বাংলাদেশের ঢাকা নগরী।

৩০ এপ্রিল ২০১৪, ইউক্রেনে, ইউ.এস. দূতাবাস কিভস এর বিশ্ব সপ্তাহ-২০১৪ উদযাপিত হয়। যা পরিচালনা করেছিলেন রাষ্ট্রদূত জিওফ পিট দূতাবাস থেকে ইগর সিকরস্কি রাস্তার বিপরীতে নিভকি নামক পার্কের একটি অংশ পরিস্কার-পরিচ্ছন্ন কর্মকান্ডের মধ্যে দিয়ে। সৌন্দর্য্য বর্ধন এই কর্মকান্ডে কিভ সিটি পার্কের প্রশাসনের সাথে একসাথে অংশগ্রহন করেছিলেন ২৫ জন দূতাবাস কর্মকর্তা, স্থানীয় কর্মচারী এবং পরিবারের সদস্যরা।

২রা অক্টোবর,২০১৪ বৃহস্পতিবার ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি “পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন ভারত” অভিযান উদ্ভোদন করেন। এসময় তিনি অংশগ্রহনকারী সরকারী চাকুরীজীবি, স্কুলের ছাত্র-ছাত্রীসহ হাজার হাজার জনসাধারণের কাছে ভারতকে পরিস্কার-পরিচ্ছন্ন রাখার প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করেন।

২০সেপ্টেম্বর,২০১৪ শনিবার ‘আন্তর্জাতিক সমুদ্রসৈকত পরিচ্ছন্ন দিবস’ উপলক্ষে কক্সবাজার সমূদ্র সৈকতে একটি পরিস্কার-পরিচ্ছন্ন অভিযান পরিচালিত হয়, যার আয়োজন করে বাংলালিংক। যেখানে দেশের তারকা খেলোয়াড়, সরকারী কর্মকর্তা, এনজিও কর্মী, শিক্ষক, ছাত্র-ছাত্রীসহ প্রায় দুই হাজার মানুষ একত্রে কাজ করে।

২০১১ সালের জুন মাসে, ‘রেডিও জ়্যোতি’ ছাত্র-ছাত্রীদেরকে তাদের আসেপাশের পরিবেশ পরিস্কার-পরিচ্ছন্ন রাখায় অনুপ্রাণীত করার লক্ষ্যে শেরে বাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে একটি পরিস্কার-পরিচ্ছন্ন অভিযান ও কার্যক্রম পরিচালনা করে।

পরিস্কার ও সুস্থ পরিবেশে শিশুরা।

প্রদর্শিত ছবিগুলি অনুযায়ী এসব ঘটনা বা কর্মকান্ডের পিছনে হয়তো নির্দিষ্ট উপলক্ষ ছিল। কিন্তু তা যদি থেমে যায়, তাহলে এর কোন মূল্য নেই। তাই এসব কর্মকান্ড প্রতিটি ক্ষেত্রে নিয়মিত হওয়া উচিৎ। আমাদের মনে রাখতে হবে পরিচ্ছন্ন পরিবেশ আমাদেরকেও পরিচ্ছন্ন রাখে, সুখী জীবন দান করে এবং ভবিষ্যতের জন্য একটি সুন্দর প্রজন্ম উপহার দেয়।

আসুন! আমরা আমাদের ও পরবর্তী প্রজন্মের জন্য প্রথমে নিজেকে পরিস্কার করি এবং চারিপাশের পরিবেশকেও পরিস্কার-পরিচ্ছন্ন করে সাজিয়ে তুলি।

Gilbart Sarkar

You may also like...